মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:০১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
পিরোজপুর টোনা ইউনিয়ন আ’লীগের কমিটি গঠন : হারুন খান সভাপতি মাসুম খান সম্পাদক পিরোজপুরে শহীদ নূর হোসেন দিবসে ছাত্র ইউনিয়নের শ্রদ্ধা পিরোজপুরের স্বরুপকাঠী বন্দর বিধ্বস্ত দিবসের সমাবেশে ছাত্র ইউনিয়নের সংহতি মহানবী (সা.)-কে কটাক্ষ করে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন : প্রতিবাদে চিংড়াখালীতে বিক্ষোভ পিরোজপুরে অতি দরিদ্র দলিত জনগোষ্ঠীর অবস্থান ও করণীয় বিষয়ে সংলাপ অনুষ্ঠিত ইন্দুরকানীতে ইউনিয়ন চেয়ারম্যানকে নিয়ে সমালোচনা : ওয়ার্ড আ’লীগের সম্পাদক’কে পিটিয়ে আহত পিরোজপুরে শাক-সবজি, চাল ডাল তেলের দাম কমানোর দাবিতে ছাত্র ইউনিয়নের মানববন্ধন পিরোজপুর পৌরসভার কাউন্সিলর প্রার্থী : তরুণ ছাত্রনেতা শওকত পিরোজপুরে রাজাকার পুত্রের বিরুদ্ধে মসজিদের টাকা আত্মসাৎ : গ্রামবাসীর মানববন্ধন আগামী ১৩ই অক্টোবর পিরোজপুর জেলা ছাত্র ইউনিয়নের ২২ তম কাউন্সিল

ইন্দুরকানীতে ইউনিয়ন চেয়ারম্যানকে নিয়ে সমালোচনা : ওয়ার্ড আ’লীগের সম্পাদক’কে পিটিয়ে আহত

পিরোজপুর প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ৪ নভেম্বর, ২০২০
  • ৮০ জন দেখেছেন

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীর পত্তাশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাওলাদার মোয়াজ্জেম হোসেনকে নিয়ে সমালোচনা করে বক্তব্য দেয়ায় ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রঞ্জন কুমার মজুমদারকে (৫১) পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার দিবাগত রাত ১২ টার দিকে খুলনার সিটি হাসপাতালে তাকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিকালে উপজেলার চরনি পত্তাশী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনে পত্তাশী ইউনিয়ন যুবলীগের আট নম্বর ওয়ার্ডে এক কর্মীসভায় বক্তব্য রাখেন রঞ্জন কুমার মজুমদার। তিনি পত্তাশী ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক। তাঁর বক্তব্যে তিনি বলেন,’’আমাদের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম ভুল করতে পারে। কিন্তু আমার নেত্রী শেখ হাসিনাতো ভুল করতে পারেন না। তিনি উন্নয়নের জন্য কাজ করছেন। দল থেকে মোয়াজ্জেমকে মনোনয়ন দেয়া হলে আমরা আগামী নির্বাচনেও তাঁর হয়ে কাজ করবো।

এই বক্তব্য দেয়ার পরে উত্তেজিত হয়ে ওঠে চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম ও তার লোকজন। পরে রঞ্জন সভাস্থল ত্যাগ করেন। সভার মধ্য থেকে কয়েকজন নেতাকর্মী রঞ্জনকে মোয়াজ্জেম চেয়ারম্যানের কাছে ক্ষমা চাইতে বলেন। রঞ্জন সভাস্থলে যেতে চায়নি। রঞ্জন বলেন, আমি ওখানে গেলে আমাকে ওরা মারতে পারে।

কয়েকজন স্থানীয় নেতাকর্মী রঞ্জনকে অভয় দিয়ে সভাস্থলে নিয়ে যাওয়ার পথিমধ্যে মোয়াজ্জেমের লোকজন লাঠি দিয়ে বেধরক পেটাতে শুরু করেন রঞ্জনকে। এসময় ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা শাহজাহান এগিয়ে আসলে তাকেও লাঞ্চিত করেন এই যুবলীগ নেতারা। এসময় ইউপি চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন সেখানেই উপস্থিত ছিলেন।

রঞ্জন কুমার জানান, ’মোয়াজ্জেম ভুল করতে পারে’ বক্তব্যে এমন কথা বলায় আমাকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করেছে। আমি ভেবে ছিলাম বাঁচতেই পারব না। আমার হাটুটা মনে হয় ভেঙ্গেই গেছে। আমি মনে হয় পঙ্গু হয়ে যাব। আমি আর রাজনীতি করব না।
এদিকে এ বিষয়ে ইন্দুরকানী থানার ওসি মোঃ হুমায়ুন কবির জানান, আমি লোকমুখে ঘটনাটি জানতে পেরেছি। এ ঘটনায় ভিকটিমের পক্ষ থেকে আমাদের কাছে অভিযোগ দিলে অবশ্যই আমরা ব্যবস্থা নিব।

পত্তাশীর আট নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কাওসার মাঝির সভাপতিত্বে কর্মী সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পত্তাশী ইউপি চেয়ারম্যান হাওলাদার মোয়াজ্জেম হোসেন,ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলী আজগর হাওলাদার, সাধারণ সম্পাদক নিরঞ্জন কুমার, আওয়ামীলীগ নেতা শাহজাহান খান, আলতাফ হোসেন, গনপতি হালদার, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসুদ আহম্মেদ রানা, আব্দুল মজিদ, ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মজিদ ফকির, আলিম ফকির, সেতু হাওলাদার, তরুন খান,শহিদুল প্রমুখ।

শেয়ার করুন

আরও সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © 2020 prothinkbd (এই সাইটের নিউজ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া কপি করা থেকে বিরত থাকুন)
Design & Developed By: NCB IT
11223
Shares