শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:২৩ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
আগামী ১৩ই অক্টোবর পিরোজপুর জেলা ছাত্র ইউনিয়নের ২২ তম কাউন্সিল ছাত্র ইউনিয়ন মৌলভীবাজার শহর শাখার নতুন কমিটি : সভাপতি ফাহিম,সম্পাদক তারিন সমাজে পিছিয়ে পরা নারীদের নিয়ে কাজ করবে পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি : রুবাইয়াৎ লতিফ পিরোজপুরে আ.লীগ নেতার মেয়ের বিয়ে ভেঙে দেয়ার অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে সুন্দরবনের হরিণ শিকার করে মাংস নিয়ে পাচারের সময় আটক-১ মঠবাড়িয়ায় জমি নিয়ে বিরোধে বসত ঘরে হামলা : থানায় মামলা বাগেরহাটে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ভাসমান বেডে সবজি চাষ পিরোজপুরে বাড়ছে মাল্টা চাষ : স্বাবলম্বী হয়েছেন কয়েক’শ চাষী পড়ুন কোন বয়সে মেয়েদের যৌন চাহিদা সব থেকে হয় গোপন প্রেম-বিয়েতে ব্যস্ত চলচ্চিত্রের বেশির ভাগ নায়িকারা

প্রাকৃতিক দুর্যোগে পিরোজপুরে নদী ভাঙ্গন ও বেড়ীবাঁধ বিধ্বস্ত : পাল্টে যাচ্ছে মানচিত্র

পিরোজপুর প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৬৬ জন দেখেছেন

একের পর এক প্রাকৃতিক দুর্যোগে উপকূলীয় জেলা পিরোজপুরের নদী ভাঙ্গন ও বেড়ীবাঁধ বিধ্বস্ত হওয়ায় পাল্টে যাচ্ছে এ জেলার ভৌগলিক মানচিত্র। প্রতিনিয়ত ঘূর্নিঝড়, বন্যা, সাইক্লোন, নদী ভাঙ্গন, অতি বর্ষন, জোঁয়ার ও বিধ্বস্ত বেড়ীবাঁধকে মোকাবিলা করে টিকে থাকতে হচ্ছে এ জনপদের প্রান্তিক লাখ মানুষকে। বিশেষ করে প্রাকৃতিক দুর্যোগে নদী পাড়ের শতশত নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠী পানিতে ভাসছে আবার পানিতেই শেষ হয়ে যাচ্ছে।

প্রতি বছরই রাক্ষসী নদীতে বিলীন হয়ে যাচ্ছে তাদের মাথা গোজার একমাত্র অবলম্বন হিসেবে কাঁচা ঘর-বাড়ি। আবার দুর্যোগ কেটে গেলে নতুন করে বাঁধতে হয় ঘর। ভাঙ্গা গড়ার এই দো-চলায় তাদের জীবন হয়ে উঠে অনিবার্য।

পিরোজপুর জেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত প্রমত্তা কচা,কালীগঙ্গা,সন্ধ্যা ও বলেশ্বর নদীর পাড়ে বসবাস করছে জেলে ও মৃত শিল্পের সঙ্গে জড়িত হাজারও পরিবারসহ ভূমিহীন নদী সিকস্তী মানুষ। ভরা জোঁয়ারে সারাবছর ভোগান্তি থাকলেও, বর্ষা মৌসুমে বেড়ে যায় তা কয়েকগুন। নদী থেকে জোঁয়ারের পানি প্রবেশ করে যেমন বাড়ি-ঘর প্লাবিত হয় তেমনি নদীর গর্ভে বিলীন হয় হাজারো ঘর-বাড়ি। সাম্প্রতিক প্রাকৃতিক দুর্যোগ,অতি বর্ষন ও জোঁয়ারের পানি কয়েক ফুট বৃদ্ধি পেয়ে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয় বেড়িবাঁধগুলো। এতে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে স্বরুপকাঠী,কাউখালী,মঠবাড়িয়া ও পিরোজপুর সদর সহ নদী পাড়ের কয়েক লক্ষ মানুষ।

স্বরুপকাঠী সন্ধ্যা নদীর পাড়ের বাসীন্ধা হাচান সিকদার বলেন, বিভিন্ন সময় বেড়ীবাঁধ নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন,আন্দোলন সংগ্রাম করেও সুরোহা হয়নি সমস্যা সমাধানের। আমাদের এলাকায় প্রায় ৩০বছরে নদীতে সর্বস্ব হারিয়ে পরিবারগুলো এখন নি:স্ব। অনেকেই আশ্রয় নিয়েছেন অন্যের বাড়িতে কিংবা সরকারি রাস্তার পাশে। সুধু ঘর-বাড়িই নয় ঝুকিতে আছে বেশকিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ব্যবসায়ী দোকানপাট।

কাউখালীর কালীগঙ্গা নদী পাড়ে ঘরে ওঠা মৃৎ শিল্পের কারিগর দিপীকা দাস তাই ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,আমাদের বছরের পর বছর ধরে বেড়িবাঁধ নির্মাণ করার আশ্বাস দিয়েছেন সরকারি কর্মকর্তা,এমপি ও জনপ্রতিনিধিরা। তবে বাস্তবে দেখিনি কোনো কার্যক্রম।

স্থানীয় সামাজিক উন্নয়ন কর্মী ও কালেরকণ্ঠ শুভসংঘের স্বরুপকাঠী উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মিঠুন হালদার জানান, দ্রুত টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণ করা না হলে।বাংলাদের মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাবে পিরোজপুরের কয়েক’শ গ্রাম।

আর টেকসই ও মজবুত বেড়িবাঁধ নির্মাণ ও নদী শাসনের কথা জানান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মহিউদ্দিন মহারাজ । বেড়িবাঁধের সাথে নদী শাসন করা না হলে, শুধুমাত্র মাটির তৈরি বেড়িবাঁধ কোন কাজেই আসবে না এমনটাই মনে করছেন তিনি।

নদী পাড়ের মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে পানি উন্নয়ন বোর্ড অচিরেই নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকাসমূহ চিহ্নীত করে টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মানের ব্যবস্থা গ্রহন করবে এমনটাই আশা স্থানীয়দের। অতি সম্প্রতি ঘূর্ণিঝড় আম্পান, অস্বাভাবিক জোঁয়ার ও টানা বর্ষনজনিত প্রভাবে এবং সৃষ্ট জলোচ্ছাসে পিরোজপুরের ২শ’৯২ কিলোমিটার বেড়িবাধের মধ্যে ১৫ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ সম্পুর্ন ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

শেয়ার করুন

আরও সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © 2020 prothinkbd (এই সাইটের নিউজ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া কপি করা থেকে বিরত থাকুন)
Design & Developed By: NCB IT
11223
Shares