শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৩০ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
পিরোজপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের সম্পত্তি দখলের অভিযোগ করোনা প্রতিরোধে পিরোজপুরে ছাত্র ইউনিয়নের মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ পিরোজপুর টোনা ইউনিয়ন আ’লীগের কমিটি গঠন : হারুন খান সভাপতি মাসুম খান সম্পাদক পিরোজপুরে শহীদ নূর হোসেন দিবসে ছাত্র ইউনিয়নের শ্রদ্ধা পিরোজপুরের স্বরুপকাঠী বন্দর বিধ্বস্ত দিবসের সমাবেশে ছাত্র ইউনিয়নের সংহতি মহানবী (সা.)-কে কটাক্ষ করে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন : প্রতিবাদে চিংড়াখালীতে বিক্ষোভ পিরোজপুরে অতি দরিদ্র দলিত জনগোষ্ঠীর অবস্থান ও করণীয় বিষয়ে সংলাপ অনুষ্ঠিত ইন্দুরকানীতে ইউনিয়ন চেয়ারম্যানকে নিয়ে সমালোচনা : ওয়ার্ড আ’লীগের সম্পাদক’কে পিটিয়ে আহত পিরোজপুরে শাক-সবজি, চাল ডাল তেলের দাম কমানোর দাবিতে ছাত্র ইউনিয়নের মানববন্ধন পিরোজপুর পৌরসভার কাউন্সিলর প্রার্থী : তরুণ ছাত্রনেতা শওকত

অনলাইনে ক্লাসে অভিভাবকদের স্বস্তি : গোপনে প্রাইভেট টিউশুনিতে বাড়ছে অস্বস্তি

এম এ রহিম,বেনাপোল
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২৪ জুলাই, ২০২০
  • ২৫০ জন দেখেছেন

যশোরের শার্শা ও বেনাপোলে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যারের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গুগল,নিজস্ব ওয়েবসাইট অথবা ফেসবুক পেজের মাধ্যমে অনলাইনে পাঠদান কার্যক্রম শুরু হওয়ায় কিছুটা স্বস্তিতে অভিভাবকও শিক্ষার্থীরা।তবে গোপনে টিউশনি চলায় বাড়ছে অস্বিস্তি ও করোনা ঝুকি 

ভয়াবহ করোনার কারনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কত দিন বন্ধ থাকবে তা নিশ্চিত নয়। তাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ অনলাইনে পড়ালেখা শুরু করেছে।ফেসবুকপেজে নিয়মিত ক্লাস লেকচারের ভিডিও আপলোড করা হচ্ছে।উপজেলার নাভারন ফজিলাতুন্নেছা মহিলা কলেজ,সরকারি বীরশ্রেষ্ঠ নুর মোহাম্মদ কলেজ,বেনাপোল কলেজ,লক্ষনপুর স্কুল এন্ড কলেজ ও উপজেলা কলেজ মাধ্যমিক স্কুলগুলোর মধ্যে শার্শা সরকারি পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়,বুরুজবাগান পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়,বুরুজবাগান এমএল মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ ১৮টিস্কুল ওকলেজে এই কার্যক্রম চলছে।ওয়েবসাইট পেজখুলে অনলাইনে পাঠদান কার্যক্রম চালাচ্ছে।ফেসবুকে পেজ খুলে এর মাধ্যমে লেখাপড়া চালুতে খুশি শির্ক্ষীরা

নাভারন ডিগ্রি কলেজ অধ্যাক্ষ ইব্রাহিম খলিল,নাভারন গার্লূসস্কুল প্রধান শিক্ষক মোমিন উদ্দিন , বলেন,অনলাইনে যুক্ত হয়ে ক্লাশ করায় করানোয় উপকৃত হচ্ছে কিছু শিক্ষার্থীরা,কিছু বাধ্য বাধকতার কারনে জুম বা গ্রুপক্লাশ করা যাচ্ছেনা।গ্রাম এলাকার শিক্ষার্থীরা মোবাইল ও নেট সমস্যার কারনে করতে পারছেনা অনলাইন ক্লাশ-তবে ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে ক্লাশ করায়উপকৃত হচ্ছেন অধিকাংশ শিক্ষার্থীরা

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা চৌধুরি হাসান হাফিজুর রহমান বলেন,কর্ত্তৃপক্ষের নির্দেশনায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্লাস নেওয়া শুরু করেছে।এছাড়া সংসদ টেলিভিশনে প্রচারিত ক্লাস এবং সিটি ক্যাবলে প্রচারিত ক্লাস দেখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।মহামারি করোনার কারনে শিক্ষার্থীরা যাতে পিছিয়ে না পড়ে,শিক্ষার ভেতরে থাকে তাই ফেসবুক পেজের মাধ্যমে অনলাইনে ক্লাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে,অন্যরাও খুব শীঘ্রই শুরু করবেন ।উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় হাইস্কুলের শিক্ষকরা প্রাইভেট টিউশনি শুরু করেছে। সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করে যারা টিউশুনি করাচ্ছে তাদেরকে সতর্ক করা হয়েছে। টিউশনি বন্ধ না করলে আইনি ব্যাবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।   

তবে অভিভাবকরা বলছেন,যাদের ওয়েবসাইট নেই কিম্বা থাকলেও সক্রিয় না,তারা খুব সহজেই ফেসবুকে পেজ খুলে এর মাধ্যমে লেখাপড়া চালু রাখতে পারেন।একজন অভিভাবক সাইফুর রহমান বলেন,এবার মেয়ে এইচএসসি পরীক্ষা দেবে।করোনায় এখনো পরীক্ষা হলো না। এখন কলেজ নেই, প্রাইভেট নেই, বাচ্চা পড়ালেখাও করছে না।চিন্তায় ছিলাম। অনলাইনে পড়ালেখার উদ্যোগ নেওয়ায় অন্তত কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে। অনামিকা আফরিন ছোঁয়া এবার জেএসসি পরীক্ষা দেবে।তার মা লেছি ইয়াছমিন মেয়েকে নিয়ে খুব চিন্তিত। লেছি বলেন,করোনায় স্কুল বন্ধ দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রাইভেট টিউটরকেও না আসতে বলেছি। আর সেও আসতে চাচ্ছিল না। মেয়েকে নিয়ে খুব চিন্তায় ছিলাম। সংসদ টিভি আর যশোরের সিটি কেবল আমাকে অনেকটা চিন্তা মুক্ত করেছে।

 উপাধ্যাক্ষ হরেন্দ্র কুমার ঘোষ জানান, বেশির ভাগ শিক্ষার্থীকে ফেসবুকের মাধ্যমে অনলাইন ক্লাসে যুক্ত করা যাবে বলে আমরা আশাবাদী। ক্লাস নিতে গিয়ে সমস্যা হলে শিক্ষকরা তাদের অসুবিধার কথা আমাদেরকে জানাবেন।শার্শার একটি কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রবিউল ইসলাম তার ফেসবুক পেজে নিয়মিত ক্লাস লেকচারের ভিডিও আপলোড করছেন। রবিউল ইসলাম বলেন,কলেজ পর্যায়ের সকল শিক্ষার্থীদের মোবাইল ফোন আছে। ফেসবুক পেজের মাধ্যমে তারা বাসায় বসে পড়ালেখার সুযোগ পাচ্ছে।কিন্তু গুগল,শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ওয়েবসাইট অথবা ফেসবুক পেজে থাকার জন্য ডেটা খরচহয়।গ্রামের সাধারণত শিক্ষার্থীদের পক্ষে এই খরচ বহন করা অনেকটা দুরূহ। তাইডেটা খরচ কমানোর দাবি জানাচ্ছি।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা (মাউশি) অধিদপ্তরও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ‘এটুআইপ্রকল্পের সহযোগিতায় সংসদ টেলিভিশনে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান কার্যক্রম চলছে।একই ভাবে যশোর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সিটি ক্যাবলের মাধ্যমেও প্রতিদিন সন্ধায়অষ্টম ও দশম শ্রেণির পাঠদান কার্যক্রম চলছে।

উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় হাইস্কুলের শিক্ষকরা প্রাইভেট টিউশনি শুরুকরেছে। সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করে তারা প্রাইভেট টিউশনি শুরু করাই অভিভাবকরাতাদের সন্তানদের নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছে। বাড়ছে করেনা ঝুকি এ ব্যাপারে অভিভাবকরা প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার করুন

আরও সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © 2020 prothinkbd (এই সাইটের নিউজ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া কপি করা থেকে বিরত থাকুন)
Design & Developed By: NCB IT
11223
Shares