শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
পিরোজপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের সম্পত্তি দখলের অভিযোগ করোনা প্রতিরোধে পিরোজপুরে ছাত্র ইউনিয়নের মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ পিরোজপুর টোনা ইউনিয়ন আ’লীগের কমিটি গঠন : হারুন খান সভাপতি মাসুম খান সম্পাদক পিরোজপুরে শহীদ নূর হোসেন দিবসে ছাত্র ইউনিয়নের শ্রদ্ধা পিরোজপুরের স্বরুপকাঠী বন্দর বিধ্বস্ত দিবসের সমাবেশে ছাত্র ইউনিয়নের সংহতি মহানবী (সা.)-কে কটাক্ষ করে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন : প্রতিবাদে চিংড়াখালীতে বিক্ষোভ পিরোজপুরে অতি দরিদ্র দলিত জনগোষ্ঠীর অবস্থান ও করণীয় বিষয়ে সংলাপ অনুষ্ঠিত ইন্দুরকানীতে ইউনিয়ন চেয়ারম্যানকে নিয়ে সমালোচনা : ওয়ার্ড আ’লীগের সম্পাদক’কে পিটিয়ে আহত পিরোজপুরে শাক-সবজি, চাল ডাল তেলের দাম কমানোর দাবিতে ছাত্র ইউনিয়নের মানববন্ধন পিরোজপুর পৌরসভার কাউন্সিলর প্রার্থী : তরুণ ছাত্রনেতা শওকত

আবারো ভাঙনের মুখে পদ্মা

জাহাঙ্গীর হোসেন জুয়েল কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৫ জুন, ২০২০
  • ২৩৩ জন দেখেছেন

পদ্মা নদীর কুষ্টিয়া অংশে আবারো নদী ভাঙন দেখা দিয়েছে। একের পর এক ঢেউ এসে নদী গর্ভে বিলীন হচ্ছে ফসলি জমি, বসত বাড়িসহ অনান্য স্থাপনা। ইতিমধ্যেই ঘরবাড়ি ও ফসলি ক্ষেত নদীতে হারিয়ে সর্বশান্ত প্রায় কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার তালবাড়ীয়া সবজিপাড়া এলাকার হাসান আলী। সর্বনাশা পদ্মা তার ফসলি জমি গ্রাস করে নিয়েছে। ঘরবাড়ি সরিয়ে নিলেও সেটাও আবারও ভাঙনের কবলে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

স্থানীয় হাসান আলী জানান, গত বছর এই নদীর ভাঙনে বাড়ি ঘর পানিতে চলে গেছে। এবারও একই অবস্থা প্রায়। তাই আগে ভাগেই ঘরটা সরিয়ে নিয়েছি। এক বিঘা জমিতে ভুরা ছিলো। ফসলসহ পুরো জমিই পানির নিচে। প্রতিবছরই এমনটা হয়। আমরা নদী পাড়ের মানুষের কি কোন স্থায়ী আশ্রয় হবে না? সবাই আসে, দেখে যায় কাজের কাজ কিছুই হয় না।

একই এলাকার আব্দুর রশিদও এক বিঘা জমি হারিয়েছে এবার। তার জমিতে ভুট্টা ছিলো। হঠাৎ নদী ভাঙন শুরু হয়। এই বৃষ্টির ফলে নদীতে পানি বেড়ে এই অবস্থা। আমার এক বিঘা জমিতে ভুট্টা ছিলো। সেটা এই নদীতে চলে গেছে। ১০ কাঁঠা জমি হারিয়েছে একই এলাকার আব্দুল হকও। জমি গেছে তাতে কোন দুঃখ নেই। জীবন তো বেঁচে গেছে। নদী ভাঙনে বাড়ি ঘর সবই হারাতে বসেছি। জমি দিয়ে আর কি করবো। শুধু আমি না এই নদীর পাড়ে বেশিরভাগ মানুষের সহায় সম্বল হারিয়ে যাচ্ছে এই নদীর ভাঙনের কারণে।

এদিকে ভাঙন কবলীত এলাকা থেকে মাত্র ২০ ফিট দুরেই রয়েছে বাঁধ। এমন চলতে থাকলে বাঁধও নদী গর্ভে চলে যাবে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। তাদের দাবি দ্রুত সরকারিভাবে স্থায়ী কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত।

তালবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান জানান, পানি বৃদ্ধির কারণে তালবাড়ীয়ার ঐ এলাকা জুড়েই নদী ভাঙন দেখা দিয়েছে। বিষয়টি আমরা পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবগত করেছি।
কুষ্টিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পীযুষ কৃষ্ণ কুন্ডু জানান, গতবছর যেখানে আমরা বাধ নির্মাণ করেছিলাম তার পাশেই ভাঙন দেখা দিয়েছে। বিষয়টি আমরা শুনেছি। সরোজমিনে গিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

আরও সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © 2020 prothinkbd (এই সাইটের নিউজ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া কপি করা থেকে বিরত থাকুন)
Design & Developed By: NCB IT
11223
Shares