রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ০৬:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
দেখুন বন্যার পানিতে মাছ শিকারে উৎসবে মেতেছে জেলেরা লেবাননে ভয়াবহ ক্যামিকেল বিস্ফোরনের মত বড় ধরনের দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেল বাংলাদেশ করোনায় দিল্লিতে আটকা পড়া তাবলীগ জামাতের ১৪ সদস্য দেশে ফিরেছে মঠবাড়িয়ায় স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু স্মরণে দোয়া ও মিলাদ পিরোজপুরে গৃহবধুকে হত্যার বিচারের দাবীতে পিতার সংবাদ সম্মেলন করোনায় আক্রান্ত মডেল সানাই স্বেচ্ছসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদকের পিতার মৃত্যু বার্ষিকীতে পিরোজপুরে দোয়া ও মিলাদ বন্যাকবলিত এলাকার দুঃখী মানুষের পাশে ছাত্র ইউনিয়নের কর্মীরা টিকটকে আপত্তিকর ভিডিও ছাড়ায় শাস্তির মুখে ৫ নারী এফডিসির সদস্যদের জন্য এবারও ৫টি গরু কোরবানি দেবেন অভিনেত্রী পরীমণি

ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ডাক্তার ও রোগী শূন্য

নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৫ এপ্রিল, ২০২০
  • ১২৯ জন দেখেছেন

ঝালকাঠি প্রতিনিধি

নোভেল করোনা ভাইরাস সংক্রমণ আতঙ্কে রোগী শূন্য হয়ে পড়েছে ১০০ শয্যার ঝালকাঠি সদর হাসপাতাল। রোগী না থাকা ও নিরাপত্তার অভাবে চিকিৎসকরাও আসছেন না হাসপাতালে। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ধারণা, সাধারণ মানুষের মধ্যে করোনা ভাইরাসের সচেতনতা বৃদ্ধি পাওয়ায় হাসপাতাল রোগী শূন্য হয়ে পড়েছে।

সরকারি এ হাসপাতালটিতে রোগী ও ডাক্তার শূন্য থাকায় বন্ধ রয়েছে বহির্বিভাগ, অপারেশন থিয়েটার, ল্যাবরটারী এবং অভ্যর্থনা কেন্দ্র।  মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবারে দেখা যায়, হাসপাতালের বহির্বিভাগে কোন রোগীর আনাগোনা নেই। সেখানকার চিকিৎসকদের কক্ষগুলো তালাবন্ধ। বন্ধ রয়েছে টিকিট কাউন্টার। স্বাভাবিক সময়ে যেখানে ৩০০ থেকে ৪০০ রোগীর ভিড় থাকতো, সেখানে করোনা ভীতিতে পুরোটাই রোগী শূন্য। বর্তমানে পুরো হাসপাতালটিতে বিরাজ করছে ভূতুরে পরিবেশ।

তবে নীচ তলায় জরুরী বিভাগে মাঝে মধ্যে কাটছেরা কিছু রোগী আসছেন, যাদের ব্যান্ডেজ ও সেলাই করে বিদায় দেওয়া হচ্ছে। জরুরী বিভাগে দায়িত্বরত হাসপাতালের স্টাফরা সেলাই ও ব্যান্ডেজের কাজ সম্পন্ন করছেন। দ্বিতীয় তলায় ওয়ার্ডগুলো ফাকা হয়ে আছে। তবে ২/৩ জন কর্তব্যরত নার্সকে সেখানে অলস সময় পার করতে দেখা গেছে।

এখানকার দায়িত্বরত এক নার্স বলেন, রোগী নেই তাই এখন বাসা থেকে আসি আর যাই। এক কথায় রোগীর সেবার সময়টুকু এখন আসবাব পাহাড়া দিচ্ছি। সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) মো. আবুয়াল হাসানের কাছে রোগী না থাকায় তার কক্ষটিও তালাবন্ধ রয়েছে, তবে দুপুর ১২ টার দিকে তিনি হাসপাতালে আসেন। তদারকির দায়িত্ব পালন করে আবার প্রস্থান নেন। এ ব্যাপারে ঝালকাঠির সিভিল সার্জন ডা. শ্যামল কৃষ্ণ হাওলাদার বলেন, বহির্বিভাগ সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত খোলা থাকে। ভর্তি রোগীও ছিলো, অনেকে চলে গেছে। জরুরী বিভাগ সবসময় খোলা আছে, চিকিৎসকরাও সেবা দিচ্ছেন।

শেয়ার করুন

আরও সংবাদ পড়ুন
All rights reserved © 2020 prothinkbd (এই সাইটের নিউজ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া কপি করা থেকে বিরত থাকুন)
Design & Developed By: NCB IT
11223
Shares